Why I have chosen React JS Ecosystem

React JS is a JavaScript library for building user interfaces. React is a DOM manipulation library. It does the same thing as jQuery does but, in a different way. React is a component based and declarative library. React JS is not a framework, it’s a small library which can be used with any other library or framework such as jQuery, Angular etc. In this article I would like to share why I have chosen React JS and its ecosystem. Continue reading Why I have chosen React JS Ecosystem

ইতিহাস সমৃদ্ধ শহর বার্লিন ভ্রমন

গতবছর ২৮ জুলাই ইতিহাস সমৃদ্ধ শহর বার্লিন বেড়াতে যাওয়ার সৌভাগ্য হয়েছিল, বার্লিন আমার অত্যান্ত পছন্দের যায়গা। আমি আগে কখনো না গেলেও হিস্টোরিতে প্রচন্ড আগ্রহ থাকায় বার্লিন নিয়ে অনেক অনেক লেখা পড়েছি এবং ডকুমেন্টরি দেখেছি। দ্বীতিয় বিশ্বযুদ্ধ পরবর্তীতে দুই সুপার পাওয়ার যুক্তরাষ্ট্র এবং সোভিয়েত ইউনিয়নের রাজনীতির অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছিল বার্লিন। জার্মানি আসার পর থেকেই বার্লিন যাওয়ার জন্য মনটা ব্যাকুল হয়ে থাকতো অবশেষে সুযোগ একদিন এসেই পরলো অফিসে একদিন ছুটি নিয়ে উইকেন্ডের দুই দিন মিলিয়ে ৩ দিনের একটি ট্যুর দিয়েই ফেললাম। ট্যুরের বিস্তারিত উল্লেখ করার চেষ্টা করবো আশাকরি। Continue reading ইতিহাস সমৃদ্ধ শহর বার্লিন ভ্রমন

নাম নিয়ে বিরম্বনা, Md দিলে কি সমস্যা হবে? সিগনেচার বাংলায় হবে?

বাঙালির নাম সমস্যাঃ বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর সাথে আমাদের পার্থক্য হল, ওদের নাম আর জন্মদিন একটাই কিন্তু আমাদের একটার বেশি হতেই হবে। জন্মদিন তো দুটা কমন ইস্যু এরপর শুরু হয়েছে নাম সমস্যা, নিজের বাড়িতে একটা নাম অফিশিয়াল কাগজপত্রে আরেকটা নাম, আত্বীয় স্বজনের কাগজে আরেকটা আবার যায়গাজমির কাগজে আরেকটা। এতগুলো নাম নিয়ে যন্ত্রনা সাধারন মানুষদের খুব একটা পোহাতে না হলেও সমস্যা হয় যারা দেশের বাইরে যান বা অনেক অফিশিয়াল কাজকর্ম করতে হয়। যারা এই সমস্যায় পরেছেন তারাই জানেন এটা কত বিরক্তিকর আর কষ্টদায়ক। আজকে আমি এরকম কিছু সমস্যার কথা উল্লেখ করবো এবং কিভাবে ভবিষৎতে এই সমস্যা থেকে দুরে থাকে যায় সে ব্যাপারে কিছু পরামর্শ দিবো। Continue reading নাম নিয়ে বিরম্বনা, Md দিলে কি সমস্যা হবে? সিগনেচার বাংলায় হবে?

জার্মানি যাওয়ার পর প্রথম দেশে ফেরা

এখানে আসার পর থেকে হেন কোন ঝামেলা নেই যেটার সম্মুখীন হই নাই। রাস্তায় বের হতেও চিন্তায় পরতে হত। কেউ কিছু বুঝে না। কোনভাবে এই সমস্যাগুলো কাটিয়ে উঠছিলাম কিন্তু মিশুর কান্নাকাটিতে কিছুতেই স্বাভাবিক থাকতে পারছিলাম না। দিন দিন মানসিক শক্তি হারিয়ে যাচ্ছিল। একেতো নতুন অফিস সেখানে তাদের মহান পুরাতন টেকনোলজি তারপর সেটা আবার আমি পারি না। সবকিছু মিলিয়ে লেজেগোবরে অবস্থা।

বিস্তারিত পড়ুন

জার্মানিতে আসার শেষ সময়ের স্মৃতিচারন

জার্মানিতে আমার আসা নিয়ে বেশকিছু পোষ্ট লিখেছি, এবার চিন্তা করেছি কয়েকটি পোষ্ট লিখবো একটু ভিন্ন বিষয় নিয়ে। জার্মানি যাওয়ার প্রস্তুতি বা যাওয়ার প্রাক্কালে আমার ব্যাক্তিগত জীবনে একটা প্রভাব পরতে শুরু করে। মূলত এই বিষয়গুলো নিয়েই আজকের রচনা।

বিস্তারিত পড়ুন

জার্মানির কিছু ফ্যাক্ট এবং নিয়মকানুন যেগুলো জেনে আসা উচিত

জার্মানিতে এসে আমার মত যারা কোনদিন উন্নত দেশগুলে যায় নি তাদের একটু খাবি খেতে হয়, রাস্তা পার হবার আগেও টেনশনে থাকতে হয় কিছু ভুল হল কিনা ভেবে। যাদের পরিচিত কেউ এখানে আছে তাদের এই সমস্যা কম, কয়েকদিনেই সবকিছু শিখে ফেলে কিন্তু যাদের পরিচিত নাই তাদের জন্য একটু সমস্যাই। এক্ষেত্রে আগেভাগে নিয়মকানুন কালচার সম্পর্কে জেনে আসতে পারলে ভাল তাতে নির্ভার থাকা যাবে। এসব কিছু বিষয় নিয়েই আজকের লেখা। যদি কোন পয়েন্ট বাদ পরে যায় তাহলে কমেন্টে জানানোর জন্য অনুরোধ থাকলো।

Continue reading জার্মানির কিছু ফ্যাক্ট এবং নিয়মকানুন যেগুলো জেনে আসা উচিত

কম্পিউটার প্রোগ্রামার হিসেবে ক্যারিয়ার প্রস্তুতি

একটা সময় ছিল যখন লোকজন “হুজুগে বাঙালি” কথাটার বারবার প্রমান করার জন্য HSC শেষ করে নগদে CSE তে ভর্তি হয়ে যেত। তারপর একজন এই হুজুগটা গিয়ে পরলো EEE এর উপরে। ফাইনালি এখনো আমরা এই হুজুগটা প্রমান করেই চলেছি গনহারে CSE তে ভর্তি হয়ে। সবকিছু ভার্সিটির পড়াশুনা থেকে হয় না এটা আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে খুবই প্রমানিত। আমি দামী কোন ভার্সিটির ছাত্র ছিলাম না, বলতে গেলে নিম্বসারির একটা ইউনিভার্সিটির ছাত্র ছিলাম। আমি আগেই বুঝতে পেরেছিলাম ইউনিভার্সিটি আমাকে তেমন কিছু দিতে পারবে না, যা করার আমাকেই করতে হবে। আমার নিজেরও অনেক ভুলভ্রান্তি ছিল যা আজকের লেখায় উল্লেখ করার চেষ্টা করবো।

Continue reading কম্পিউটার প্রোগ্রামার হিসেবে ক্যারিয়ার প্রস্তুতি

জার্মানিতে বিভিন্ন অফিসের সার্ভিস অভিজ্ঞতা এবং ভাষাগত সমস্যা

জার্মানিতে আসার পরই বিভিন্ন অফিসে দৌড়াদৌড়ি শুরু হয়ে গেল, ইন্সুরেন্স, ফরেইন অফিস, ফাইন্যান্স অফিস, ব্যাংক ইত্যাদি। পুরোপুরি মিশ্র অভিজ্ঞতা। সবার সাথে অভিজ্ঞতাগুলো না মিললেও আমার অভিজ্ঞতাগুলো একটু গুছিয়ে লেখার চেষ্টা করলাম আশাকরি আপনাদের কাজে আসবে। Continue reading জার্মানিতে বিভিন্ন অফিসের সার্ভিস অভিজ্ঞতা এবং ভাষাগত সমস্যা